Wednesday , 24 May 2017
Home / Islam / জেনে নিন আল্লাহর প্রিয় যারা!

জেনে নিন আল্লাহর প্রিয় যারা!

Loading...

জেনে নিন আল্লাহর প্রিয় যারা!

 

আল্লাহর প্রিয় বান্দা হয়ে জান্নাত আর্জনই মুমিন-মুসলিমের লক্ষ্য। তাই মুমিনকে আল্লাহর সন্তুষ্টির পথ খুঁজে ফিরতে হয় সারাটা জীবন ধরে। মুমিন বান্দা আল্লাহর সন্তুষ্টির সাথে নিজের প্রত্যাশা ও প্রাপ্তির একাত্মতা ঘোষনা করে, তারা কোরআনের আলোকে নিজের জীবন গঠনে সচেষ্ট হয়। যখন কোন ভুল হয়ে যায় তারা আল্লাহর কাছে তওবা করে কোরআন-সুন্নাহ নির্দেশিত পথে ফিরে আসে।

আল্লাহ কোরআনের বিভিন্ন জায়গায় তিনি যাদেরকে ভালোবাসেন বা তাঁর প্রিয় হওয়ার নিমিত্তে করণীয় কি তা বর্ননা করেছেন।

যারা আল্লাহর পথে অর্থ ব্যয় করে, রাগকে নিয়ন্ত্রন করে এবং মানুষকে ক্ষমা করে ইহসান তথা আনুগ্রহের পথে চলে আল্লাহ তাদেরকে ভালোবাসেন। আল্লাহ বলেন- “ আর ব্যয় করো আল্লাহর পথে তবে নিজের জীবনকে ধংসের সম্মুখীন কোরো না। আর মানুষের প্রতি আনুগ্রহ কর। আল্লাহ অনুগ্রহকারীদেরকে ভালোবাসেন”। (সুরা বাকারা, আয়াত-১৯৫)

সুরা আল মায়িদায় আল্লাহ বলেন- “নিশ্চয়ই আল্লাহ তাদেরকে পছন্দ করেন, যারা ইহসানের পথে চলে”। (মায়িদা,আয়াত-১৩)

যারা সৎকর্মশীল তারাই আল্লাহর পছন্দের তালিকায়। সুরা আল ইমরানের ১৩৪ নং আয়াতে আল্লাহ বলেন- “যারা স্বচ্ছলতায় ও অভাবের সময় আল্লাহর পথে ব্যয় করে, যারা নিজেদের রাগকে সংবরন করে আর মানুষের প্রতি ক্ষমা প্রদর্শন করে, বস্তুতঃ আল্লাহ সৎকর্মশীলদেরকেই ভালবাসেন”।

ন্যায় বিচারক শাসককে আল্লাহ প্রিয় বান্দা হিসেবে গ্রহণ করবেন। হাদিসে বর্নীত হয়েছে ন্যায় বিচারক শাসক হাশরের দিনে আল্লাহর আরশের ছায়াতলে আশ্রয় পাবেন। রাসুল (সাঃ) কে উদ্দেশ্য করে আল্লাহ বলেন-

Loading...

“যদি বিচার ফয়সালা করেন তাহলে ইনসাফের সাথে করুন, আল্লাহ ইনসাফকারীদের পছন্দ করেন”। (সুরা আল মায়িদা, আয়াত-৪২)।

আল্লাহ মুত্তাকী তথা আল্লাহভীরু, প্রতিশ্রুতি পুর্ণকারী ও পবিত্রতা অর্জনকারীগণকে ভালোবাসেন। আল্লাহর প্রিয় বান্দা যারা তারা প্রতিশ্রুতি ভংগকারী নন। এমনকি মুশরিকদের সাথেও যদি কোন ব্যপারে চুক্তি করে থাকেন তাহলে তাও অত্যন্ত মর্যাদার সাথে পালন করে থাকেন। আল্লাহ কোরআনে বলেছেন-

“হে ঈমানদার গণ ঐ সব মুশরিক যাদের সাথে তোমরা চুক্তি করেছো, এরপর যারা চুক্তি পালনে ত্রুটি করেনি এবং তোমাদের বিরুদ্বে কাউকে সাহায্য করেনি, এমন লোকদের সাথে তোমরাও চুক্তি মেয়াদ পুরা করো। আল্লাহ মুত্তাকীদের ভালোবাসেন”।

(সুরা তাওবা, আয়াত-৪)

বান্দার তাক্বওয়া ও পবিত্রতা অর্জন আল্লাহর প্রিয় কাজের মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ। সুরা তাওবার ১০৮ নং আয়াতে আল্লাহ বলেন- “ যে মসজিদ প্রথম দিন থেকেই তাক্বওয়ার ভিত্তিতে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এরই বেশী হক যে আপনি সেখানে দাঁড়াবেন। সেখানে এমন সব মানুষ রয়েছে, যারা পবিত্র থাকা পছন্দ করে।  আর আল্লাহ পবিত্রতা ইখতিয়ারকারীকেই পছন্দ করেন”।

আল্লাহর প্রিয় বান্দা হওয়ার অভিপ্রায় থাকলে বিপদে আপদে দুঃখ শোকে চিন্তা- চেতনায় পরিপূর্ণ ভাবে আল্লহর উপর ভরসা করতে হবে। আল্লাহ কোরআনে বলেনঃ

“যা কিছু তোমাদের দেওয়া হয়েছে তা দুনিয়ার কদিনের জীবনের সাজ সরঞ্জাম মাত্র। আর যাকিছু আল্লাহর কাছে আছে তা যেমন বেশী ভালো, তেমনি স্থায়ী ঐসব লোকের জন্য যারা ঈমান এনেছে ও তাদের রবের উপর ভরসা করেছে। আর যারা কবিরা গুনাহ ও অশ্লীল কাজ থেকে বিরত রয়েছে এবং রাগান্বিত হয়ে গেলেও মাফ করে দেয়”। (সুরা আশ-শুরা, আয়াত-৩৬-৩৭)

তাই আল্লাহর প্রিয় হতে হলে চাই কোরআন নির্দেশিত পথে চলা। আল্লাহর ভালোবাসায় বিলিন হয়ে রাসুলের আনুগত্য করা। ক্রোধ, লোভ, অশ্লিলতা থেকে মুক্ত হয়ে তাওবার মাধ্যমে তাকওয়া অর্জন করে আল্লাহর নিকটবর্তী হওয়া।

Facebook Comments

Leave a Reply