Wednesday , 20 September 2017
Home / Exclusive / প্রেমিকাদের সামনে স্বামী আমাকে কাজের মেয়ে সাজায়…

প্রেমিকাদের সামনে স্বামী আমাকে কাজের মেয়ে সাজায়…

Loading...

প্রেমিকাদের সামনে স্বামী আমাকে কাজের মেয়ে সাজায়…

আমার বয়স ২১ বছর, বিয়ের বয়স ১। আমি আর স্বামী একই ব্যাচের স্টুডেন্ট, তবে ওর বয়স ২৫। আমার শ্বশুরের বড় ছেলে মারা যাবার পর এই ছেলেকে বিয়ে করিয়ে দেয়। বিয়ের ৭ দিন পর থেকেই ঝামেলার শুরু। ধীরে ধীরে জানতে পারলাম ওর অন্য মেয়েদের সাথে সম্পর্ক আছে। আস্তে আস্তে দেখি সে এক মেয়েকে ছেড়ে আরেক মেয়ের কাছে যায়, এটাই তার স্বভাব। আমি তার ফোন রিচিভ করে ফেললে প্রেমিকাদের সামনে আমাকে কাজের মেয়ে সাজায়, বোন সাজায়। আর সে আমাকে অনেক মারে।

 

প্রথম প্রথম ওর মা বাবা আমাকে অনেক সাপোর্ট করতো। এখন বলে যে সব দোষ নাকি আমার। বলে মেয়ে হলে নাকি মাটি হতে হয়। ও আমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করতে চায় না। সে ব্লু ফিল্ম দেখে আর সেটাই তার নেশা। এমনকি আমার সাথে যৌন সম্পর্কের সময়েও ব্লু ফিল্ম দেখে। আমার মা বাবা কেউ নাই। যাওয়ার কোন জায়গা নাই। মফস্বলের একটা কলেজ থেকে ইংলিশ সেকেন্ড ইয়ারে পড়ছি।

আমি এখন কী করবো প্লিজ বলে দেন। আমার আর বাঁচতে ইচ্ছা হয় না।

সমস্যাটি জানিয়েছেন নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক অসহায় তরুণী।

আপুরে, ভীষণ কষ্ট লাগল তোমার কথা গুলো পড়ে। আরও খারাপ লাগল এটা সঞে যে তোমার মা বাবা নেই, যাওয়ার কোন জায়গা নেই। এখন আমি তোমাকে কিছু কথা বলছি, মন দিয়ে শোন আপু।

 

Loading...

যেহেতু তোমার যাওয়ার কোন জায়গা নেই, তাই এই সমস্যা থেকে হুট করে মুক্তি পাবার কোন সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই। কিন্তু হ্যাঁ, কিছ বছর ধৈর্য ধরে থাকলে পাওয়া সম্ভব। আর আমি জানি, তুমি সেটা নিশ্চয়ই পারবে। তোমাকে এখন বুদ্ধি করে কিছু কাজ করতে হবে। আমি তোমার জায়গায় হলে কী করতাম, সেটাই তোমাকে বলছি।

 

প্রথমত, লোকটার সাথে কোন রকম কোন ঝামেলায় জড়াবে না। তাকে তার মত থাকতে দাও। এই লোক কখনো বদলে যাবে বা তোমাকে ভালবাসবে, এমন সম্ভাবনা খুব কম। জীবনটা তো হিন্দি সিনেমা না। তাই এই লোকটার সাথে পারতপক্ষে কোন ঝামেলায় যাবে না বা তাকে কিছু বলবে না। এতে অন্তত সে যে তোমাকে মারে, এই সমস্যা থেকে একটু হলেও মুক্তি পাবে। তোমার আপন কে নেই বা আর্থিক জোর নেই, তাই আপাতত কয়টা দিন সহ্য করো বোন।

 

দ্বিতীয়ত, সে যে তোমার সাথে শারীরিক সম্পর্ক করে না। এটা মোটেও খারাপ কিছু না। এমন খারাপ চরিত্রের একটা লোকের সাথে সম্পর্ক না হওয়াই ভালো। প্লাস, তুমি অবশ্যই খেয়াল রাখবে যেন গর্ভবতী হয়ে না পরো। প্রয়োজনে গোপনে বার্থ কন্ট্রোল পিল ইউজ করবে। কিন্তু কোন ক্রমেই সন্তান নেবে না। তাহলে চিরকালের জন্য এখানে বন্দী তুমি।

 

তৃতীয়ত, খুব মন দিয়ে লেখাপড়া করো। মফস্বলে পড়ছ, এটা মোটেও খারাপ কিছু না। আর যেহেতু ইংরেজী বিভাগে পড়ছ, আমি ধরে নিচ্ছি তুমিও ছাত্রীও খারাপ না। আমাদের দেশে ইংরেজিতে লেখাপড়া জানা মানুষের কাজের অভাব নেই। যদি ভালো ফলাফল করতে পার, তাহলে খুব সহজেই একটা চাকরি পেয়ে যাবে। তোমার জীবনে এক মাত্র লক্ষ হোক এখন নিজের পায়ে দাঁড়ানো। একবার নিজের পায়ে দাঁড়িয়ে গেলে তুমি আইনের সহায়তা নেবে। এই লোককে তুমি এক তরফাই তালাক দিতে পারবে। একে খোলা তালাক বলে। সে তোমাকে নির্যাতন করে, এটাই তালাক দেয়ার জন্য যথেষ্ট। সেই সাথে তার বিরুদ্ধে নারী নির্যাতন মামলা ও দেনমোহরের জন্য মামলাও ঠুকে দিতে পারবে। আমাদের দেশে মেয়েদের জন্য অনেক সংস্থা আছে যারা বিনা স্বার্থে তোমার হয়ে এই কাজগুলো করে দেবে, তোমার সহায়তা করবে।

 

তাই ধৈর্য হারাবে না আপু। আর লোকটা যদি বেশি মারপিট করে, তুমি থানায় গিয়ে স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির নামে একটা জিডি করিয়ে রাখবে যে তোমার কিছু হলে এই পরিবার দায়ী। বিধাতা তোমার সহায় হোক আপু।

Facebook Comments

Leave a Reply