Sunday , 19 November 2017

৬৫ বছরের জলপরী পাতুরানি। এর পিছনের ঘটনা জানলে চমকে যাবেন!

Loading...

একটা দু’টো বছর নয়, কুড়ি বছর ধরে কার্যত জলেই বাস পাতুরানি ঘোষের। জলই তাঁর জীবন। সকালের আলো ফুটলেই নেমে পড়েন বাড়ির পাশের পুকুরে। গলা জলে গিয়ে বসে থাকা। মাঝেমধ্যে চোখে-মুখে জল ছিটিয়ে নেওয়া। এভাবেই দু’দশক ধরে জলেই সংসার পেতেছেন পাতুরানি।

 

 

Loading...

২০ বছর আগে যখন স্বামীর মৃত্যু হয় তখন থেকেই এই অভ্যাস মাথাচাড়া দিয়েছিল তাঁর। সে সময় মুর্শিদাবাদের সালারে থাকতেন তিনি। এখন সালারের বাস তুলে দিয়ে তাঁর বাস কাটোয়ায়, মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে।
কিন্তু, অভ্যাস ছাড়তে পারেননি পাতুরানি। সকালে চা ও মুড়ি খেয়েই নেমে পড়েন জলে। দুপুরে কিছু খান না। গভীর রাতে জল থেকে ফের ডাঙায় আসেন তিনি। ৫ মাস অন্তর দুপুরে ভাত খান পাতুরানি। এমনকী, আত্মীয়দের বাড়িতে বেড়াতে গেলেও তাঁর পুকুর চাই। পুকুর না থাকলে তিনি সেই আত্মীয়র বাড়ি যান না।

পাতুরানির মেয়ে জানিয়েছেন, ‘এভাবেই ২০টা বছর কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি।’ পাতুরানি জানিয়েছেন— স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকেই মৃত্যু ভয় তাঁকে তাড়া করত। মনে করতেন তিনি মারা যাবেন। অস্বস্তি কাটাতে পুকুরের জলে নেমে পড়তেন। সেই শুরু। এরপর জলেই জীবনের শান্তি খুঁজে পেয়েছেন পাতুরানি।

মনরোগ বিশেষজ্ঞদের মতে, পাতুরানির এভাবে সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত জলে বসে থাকা একটি মানসিক রোগ। সঠিকভাবে কাউন্সেলিং করলে তাঁর পক্ষে সুস্থ জীবনে ফিরে আসা সম্ভব।

Facebook Comments

Leave a Reply