Thursday , 14 December 2017

আমি মিলনের পূর্বে যৌন উত্তেজক ঔষুধ খাই এবং অধিক সময় মিলন করি,এতে কোন ক্ষতি হবে কি?

Loading...

রশ্নঃ আমি মিলনের পূর্বে যৌন উত্তেজক ঔষুধ খাই এবং অধিক সময় মিলন করি।এতে কোন ক্ষতি হবে কি না?
প্রশ্নটি করেছে ফেসবুকে , আমার বয়স ২৩ বছর। কিছু দিন পূর্বে প্রথম যৌন মিলন করি। তাও আবার দু’জনের মতামতের উপর ভিত্তি করে। তার খুব ইচ্ছা ছিল সে জন্য। আমি মিলন করার পূর্বে যৌন উত্তেজনা ঔষুধ খাই এবং বেশ সময় নিয়ে তার সাথে মিলন করি। এখন প্রশ্ন হচ্ছে এতে কি কোন ক্ষতি হতে পারে কি না। আবার কখনও মিলন করার সময় কি ওষধ খেতে পারব? আর এতে ভবিষ্যতে কি কোন ক্ষতি হতে পারে কি না। সে অনেক রোমান্টিক এবং মাঝে মাঝে টিভিতে যে একটি চ্যানেল আছে সেটা দেখে। আর এ থেকে তার ভিতর একটু রোমাঞ্চ বেশী। আমি চিন্তা করি যখন ঐসব ছবি দেখছে। এখন আমি যদি তাকে ঐরকম ভাবে না করি তবে হয়ত বা সে আরো কৌতুহলী হয়ে পড়তে পারে। সার্বিক দিকে বিবেচনা করে যদি একটি সুন্দর পরামর্শ দেন তবে চির কৃতজ্ঞ থাকব।

 

সমাধান

যৌন উত্তেজক ওষুধ খেলে পরবর্তীতে এসব ওষুধ ছাড়া আপনি মিলন করতে পারবেন না। এবং আপনি সক্ষমতা হারাবেন। তাই এখনই এসব ওষুধ ত্যাগ করুন। বিভিন্ন পর্ণ মুভিতে যা দেখায় টা বাস্তব বিবর্জিত। আপনার স্ত্রীকে বোঝাতে হবে সাধারন ভাবে যেটুকু থাকবে সেটাই প্রকৃত অবস্থা। এটা মেনেই চলতে হবে।

 

যৌন উত্তেজক ওষুধ খাবেন না, নিয়মিত ব্যায়াম করুনঃ

অ্যালোপ্যাথি বা হারবাল যৌন উত্তেজক ওষুধ খাওয়া থেকে সম্পূর্ণ বিরত থাকুন এবং নিয়মিত পুষ্টিকর খাদ্য গ্রহণ করুন। আমাদের সকলেরই জেনে রাখা ভাল যে, ফিটনেস ব্যায়ামের মাধ্যমেই শরীরটাকে ফিট রাখা যায় এবং কাঙিক্ষত ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় রক্ত প্রবাহ তৈরি হয়ে বেশ আশানুরূপ ফলাফল পাওয়া যায়। ব্যায়াম যে শুধু শরীর গঠনে সহায়ক তাই নয়, ব্যায়ামে রক্তনালীতে চর্বি জমতে দেয় না। ফলে হার্টের রক্তনালীতে ব্লক সৃষ্টির ঝুঁকি কম থাকে এবং সেই সাথে যৌন স্বাস্থ্যও ভাল রাখে।

Loading...

 

আমরা সব সময় বলে আসছি পুরুষের শারীরিক সমস্যার শতকরা ৮০ ভাগ মানসিক। আর মানসিক সমস্যার কোন ওষুধের প্রয়োজন হয় না। সামান্য কাউন্সিলিং করলেই সমস্যার সমাধান সম্ভব। বিবাহিত পুরুষের শারীরিক সমস্যার মধ্যে প্রধান দুইটি সমস্যা হচ্ছে ইরেকটাইল ডিসফাংশন (ইডি) এবং প্রিমসিউর ইজাকুলেশন (পিএমই)।

 

এছাড়াও পুরুষ ও মহিলাদের শারীরিক অন্যান্য সমস্যা রয়েছে যা যৌন জীবনকে ক্ষতিগ্রস্ত করে। তবে ইডিএবং পিএমই এই দু’টো শারীরিক সমস্যার ক্ষেত্রে চিকিৎসার প্রয়োজন পড়ে। তবে কোন অবস্থাতেই চিকিৎসকের পরামর্শ ব্যতীত ভায়াগ্রা জাতীয় যৌন উত্তেজক ওষুধ সেবন করা উচিত নয়। কারণ একসময় এটাই আপনাকে নি:শেষ করে দিবে। তবে হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা সকল প্রকার যৌন সমস্যা চিরতরে নির্মূলে তুলনাহীন। শুধু তাই নয়, হোমিওপ্যাথি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ামুক্ত। এ সংক্রান্ত যে কোন সমস্যায় ভাল একজন হোমিওপ্যাথের পরামর্শ নিন।

 

ওষুধ ও কাউন্সিলিং-এর পাশাপাশি শারীরিক সমস্যার সমাধানে ফিটনেস বেশি প্রয়োজন। অনেক ক্ষেত্রে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের ক্ষেত্রে উপযুক্ত সময় নির্ধারণ ও যথাযথ পরিবেশ প্রয়োজন।

শরীর ফিট রাখতে নিয়মিত ব্যায়াম করা ভালো প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট ব্যায়াম করা ভালো। তবে যারা ৫০ থেকে ৬০ মিনিট বা এক ঘন্টা ব্যায়াম করতে পারেন তাদের শরীর বেশি ফিট থাকে। তাই বলে কঠোর শারীরিক পরিশ্রম অথবা দীর্ঘসময় ব্যায়াম করার অব্যবহিত পরপরই স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক স্থাপন ঠিক নয়। ব্যায়াম করার সময় শরীরের রক্ত চলাচল বেড়ে যায়, অনেক ক্ষেত্রে খানিকটা রক্ত চাপও বাড়ে। ব্যায়ামের পর শরীর স্বাভাবিক হতে অন্তত তিনঘন্টা সময় লাগে। নিজে জানুন আর শেয়ার করে অন্যকে জানতে সহায়তা করুন।

Facebook Comments

Leave a Reply